হাতীবান্ধা থানার বিশেষ অভিযানে দই খাওয়া বাজারে জনৈক আব্দুল হক(৩৭), পিতা-মৃত ছফর উদ্দিন এর ভাড়া গোডাউন ঘর হইতে জুয়া খেলারত অবস্থায় জুয়া খেলার সরঞ্জাম সহ ভ্রাম্যমান আদালতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব সামিউল আমিন মিসকেস নং-৬৫/১৯, তারিখ- ৩০/১০/১৯ খ্রি: ধারা- ১৮৬৭ সালের প্রকাশ্য জুয়া আইন এর ৩ ধারা মতে আসামী ১। মো: আ: হক, পিতা- মৃত সফর উদ্দিন, সাং- গাওচুলকা, থানা-হাতীবান্ধা, জেলা- লালমনিরহাট কে ২৫ দিন বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন এবং মিসকেস নং- ৬৬/১৯, তারিখ- ৩০/ ১০/ ১৯ খ্রি: ধারা- ১৮৬৭ সালের প্রকাশ্য জুয়া আইনের ৪ মতে আসামী ১। মো: নুরুজ্জামান (৫৫), পিতা- মৃত মফিজ উদ্দিন, সাং- দই খাওয়া (৬ নং ওয়ার্ড), ২। মনোবেরুল (৩০), পিতা- আবু তালেব, সাং- দইখাওয়া( ৫ নং ওয়ার্ড), ৩। মো: লাভলু মিয়া (৩৫), পিতা- মৃতা: জব্বার, সাং- আমঝোল (৮ নং ওয়ার্ড), ৪। মো: আজিজার রহমান (৫২), পিতা- মো: আছর উদ্দিন, সাং- উত্তর গোতামারী ( ১ নং ওয়ার্ড), ৫। মো: মির হোসেন (৪০), পিতা- মহির উদ্দিন, সাং- দইখাওয়া(5 নং ওয়ার্ড), ৬। মো: আ: রহিম(২৮), পিতা- মো: মোজাফফর আলী, সাং- আমঝোল (৮নং ওয়ার্ড), ৭। মো: আবুল কালাম(৩০), পিতা- আবেদ আলী, সাং- গাওচুলকা( ৭ নং ওয়ার্ড), ৮। মো: আনোয়ারুল ইসলাম (৩৫), পিতা- খয়ের উদ্দিন, সাং- আমঝোল (৮ নং ওয়ার্ড), সর্ব থানা- হাতীবান্ধা, জেলা- লালমনিরহাট কে ২১ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন । অভিযান পরিচালনাকারী অফিসার এএসপি(প্রবি) জনাব, সজিব ত্রিপুরা, ইন্সপেক্টর (তদন্ত) জনাব, মো নজির হোসেন, এস আই(নি:) মো: আ: সবুর মিয়া এবং সংগীয় অফিসার ও ফোর্স ।