লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগে ঘাতক স্বামী রবি বর্ম্মনকে (৪০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার (২৫ আগস্ট) দুপুরে উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ গোবদা নিজ বাড়ি থেকে নিহত গৃহবধু পুর্নিমা রানীর (৩০) মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গত ১২/১৩ বছর আগে রবি বর্ম্মনের সাথে বিয়ে হয় একই উপজেলার ভেলাবাড়ি ইউনিয়নের কৈমারী গ্রামের মৃত ধীরেন্দ্র নাথের মেয়ে পুর্নিমা রানীর। বিয়ের পর তাদের সংসারে একটি ছেলে ও এক মেয়ের জন্ম হয়।

শনিবার (২৪ আগস্ট) বিকেলে ছেলে মেয়েরা দুষ্টমী করলে শাসন গর্জন করেন ভ্যান চালক রবি বর্ম্মন। রাতে বাড়ি ফিরে পুনরায় ছেলে মেয়েকে লাঠি দিয়ে মারপিট করলে স্ত্রী পুর্নিমা রানী এগিয়ে এলে তাকেও বেধড়ক মারপিট করে। এক পর্যয়ে স্ত্রী পুর্নিমা রানীকে গলা চিপে শ্বাসরোধে হত্যা করে মরদেহ লুকিয়ে রাখার চেষ্টা করে রবি বর্ম্মন।

রোববার (২৫ আগস্ট) সকালে প্রতিবেশীরা বিষয়টি জানতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরী করে হত্যার আলামত পেয়ে স্বামী রবি বর্ম্মনকে আটক করে।

এ ঘটনায় পুর্নিমা রানীর বোন বাদি হয়ে রোববার দুপুরে আদিতমারী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় আটক স্বামী রবি বর্ম্মনকে গ্রেফতার দেখায় থানা পুলিশ।

আদিতমারী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) সাইফুল ইসলাম লালমনি প্রতিদিনকে জানান, নিহতের ডান কানের নিচে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে এবং নাকে মুখে আসা রক্ত দেখে হত্যাকান্ড বলে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে। বাদির মামলায় আটক স্বামী রবি বর্ম্মনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।