বরগুনায় রিফাত হত্যাকাণ্ডে এফআইআরের বাইরেও অনেকে জড়িত থাকতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। তিনি রোববার বিকেলে রংপুরে নবনির্মিত পুলিশ সুপারের কার্যালয় উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

আইজিপি বলেন, রিফাত হত্যার ঘটনায় কেউ রেহাই পাবে না। তাদের পালানোর সব পথ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। দেশের সব সীমান্ত ও ইমিগ্রেশনে তাদের বিষয়ে তথ্য দেওয়া হয়েছে, যাতে পালাতে না পারে। এ পর্যন্ত এ ঘটনায় আটজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ প্রসঙ্গে আইজিপি বলেন, ‘রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশে আরও অনেক বেশি সরঞ্জামাদি প্রয়োজন। আমরা চেষ্টা করছি যাতে রংপুর পুলিশ প্রশাসন আরও বেশি স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়ে উঠতে পারে।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন রংপুর পুলিশ রেঞ্জের উপ-মহা-পরিদর্শক (ডিআইজি) দেবদাস ভট্টাচার্য বিপিএম, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার জানাব আবদুল আলীম মাহমুদ, রংপুরের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার রশিদুল হক, রংপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল-এ) সাইফুর রহমান সাইফ প্রমুখ।

এদিকে বিকেলে টাউন হল হল চত্বরে কমিউনিটি পুলিশিং মেট্রোপলিটন কমিটির আয়োজনে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। আইজিপি মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী এতে প্রধান অতিথি ছিলেন। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন পুলিশ কমিশনার আবদুল আলীম মাহমুদ।