হেলমেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে এমন কোন চেষ্টা নেই যা আমরা করি নাই। সমাজের একটি অংশের আইন না মানার প্রবণতা ও “ধ্যাততেরি” শব্দের প্রয়োগ এ কার্যক্রম টাকে বারবার বাধাগ্রস্ত করেছে। তারপরও আমরা আমরা কাজ করে যাচ্ছি অনেক আশা নিয়ে। আমি এখনো আশাবাদী হয়তো একদিন আমরা সবাই হেলমেট পরিধান করব নিজের পরিবারের কথা চিন্তা করে। কথাগুলো কিছুটা আক্ষেপ করেই বলছিলেন জনাব সুশান্ত সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(সদর সার্কেল), দিনাজপুর।
তিনি জানান যে, তার অফিসিয়াল ফেসবুক আইডিতে (https://www.facebook.com/photo.php?fbid=387015272233454&set=pcb.387015435566771&type=3&theater) যে ছবিগুলো পোস্ট দিয়েছেন সেগুলো থেকে আমাদের প্রত্যেকের অনেক শেখার আছে ।গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে গিয়ে তিনি এ দৃশ্য দেখেছেন। তিনি এতটাই খুশি হয়েছেন যে একটা ছোট্ট শিশু হেলমেট ব্যবহার করেছে। হয়তোবা এত চেষ্টা করে আমার কাছে আজকের এই অর্জন টুকু অনেক বড় মনে হয়েছে এবং ভাবিয়ে তুলেছে আপনারা কেন পারেন না হেলমেট ব্যবহার করতে।
তিনি জানান, এই কার্যক্রমকে আপনারা সাধুবাদ না জানালে বা পাশে না থাকলে এটা পুরোপুরি বাস্তবায়ন করা অসম্ভব।
অন্তত আজকের এই ছবিগুলো দেখে আমরা অনুপ্রাণিত হই এবং হেলমেট পরিধান করি। সবার মঙ্গল হোক এই শুভকামনা সবসময়।