জনাব দেবদাস ভট্রাচার্য্য, বিপিএম, ডিআইজি, রংপুর রেঞ্জ বাংলাদেশ পুলিশ, রংপুর মহোদয়ের নির্দেশে রংপুর রেঞ্জের আওতাধীন রংপুর, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, গাইবান্ধা জেলায় একযোগে ৬১ (একষট্টি)টি থানায় ০৯/৯/১৯খ্রিঃ বিকাল ১৬.০০ ঘটিকার সময় সড়ক দুর্ঘটনা হ্রাসকল্পে মোটর সাইকেল চালক ও আরোহীদের সচেতনতা মূলক কার্যক্রম পরিচালিত হয়। উক্ত সচেতনতা মূলক কার্যক্রমে মোটরসাইকেল চালক ও আরোহীদের নিরাপদ যাত্রা নিশ্চিত করনার্থে সচেতনতা মূলক লিফলেট বিতরণসহ ট্রাফিক আইন যথাযথভাবে মেনে চলার জন্য আহব্বান জানানো হয়। ১৬.০০ ঘটিকার সময় রংপুর জেলার কোতয়ালী থানাধীন পাগলাপীর বাজারে মোটর সাইকেলের চালক ও আরোহীদের মধ্যে ট্রাফিক আইন যথাযথভাবে পালনে উদ্বুদ্ধ করণসহ লিফলেট বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জনাব দেবদাস ভট্রাচার্য্য, বিপিএম, ডিআইজি, রংপুর রেঞ্জ, বাংলাদেশ পুলিশ, রংপুর। উক্ত অনুষ্ঠানে জনাব বিপ্লব কুমার সরকার, বিপিএম (বার) পিপিএম, পুলিশ সুপার, রংপুরসহ রেঞ্জ অফিস ও জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগন উপস্থিত ছিলেন। মাননীয় ডিআইজি, রংপুর রেঞ্জ ও পুলিশ সুপার রংপুর মহোদয় উপস্থিত সুধীজন ও মোটরসাইকেল চালক এবং আরোহীদের যথাযথভাবে ট্রাফিক আইন মেনে চলার আহব্বান জানান। ট্রাফিক আইন সংক্রান্তে জনসচেতনতা মূলক কার্যক্রম রংপুর জেলার সকল থানাসহ রংপুর রেঞ্জের বিভিন্ন জেলায় অব্যাহত রয়েছে।

বিতরণকৃত লিফলেটের নির্দেশনাসমূহ গুলো হলঃ-
# আইনের ভয়ে নয়, নিজের সন্তান ও পরিবারকেভালবেসে হেলমেট পরিধান করে মোটর সাইকের চালান।
# সহযাত্রীর হেলমেট পরিধান নিশ্চিত করুন।
# গতি নিয়ন্ত্রনে রাখুন।
# ঝুঁকিপূর্ন ওভারটেক করবেন না।
# ফিডার রোড থেকে মহাসড়কে উঠার সময় থেমে ডানে-বামে দেখে নিন।
# স্ত্রী, সন্তানকে নিয়ে বেপরোয়া গতিতে মোটর সাইকেল চালাবেন না।
# মোটর সাইকেল চালাবার সময় মুঠোফোনে কথা বলবেন না।
# সর্বপোরি ট্রাফিক আইন মেনে চলুন।

ভূলে যাবেন না, বাড়ীতে আপনার জন্য কেউ না কেউ অপেক্ষা করছে। দায়িত্বশীল হোন। নিজে বাঁচুন, পরিবার ও আত্মীয় স্বজনকে আনন্দে রাখুন।